সরকার দেশকে একটি পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে: মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক

খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, বিরোধী রাজনৈতিক দল ও মতের সভা-সমাবেশের উপর বি‌ধিনিষেধ আরোপ করে সরকার দেশকে একটি পুলিশী রাষ্ট্রে পরিণত করেছে। সরকার জনগণের ভোটের

অধিকার কেড়ে নিয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগের মাধ্যমে নাগরিকদের উপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে সভা-সমাবেশের উপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করে, হামলা, মামলা দিয়ে সরকার তাদের একদলীয় শাসনকে প্রলম্বিত করতে চায়। কিন্তু জনগণ বেশী চুপ

করে থাকবে না। খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। আজ বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সাভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে

উপস্থিত ছিলেন নায়েবে আমীর মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী, মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, যুগ্মমহাসচিব- এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, অধ্যাপক মোঃ আবদুল জলিল, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মোঃ মিজানুর রহমান,

সমাজকল্যাণ সম্পাদক আলহাজ আবু সালেহীন, প্রশিক্ষণ ও প্রকাশনা সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মিনহাজুল আলম, ডাঃ শরীফ মুহাম্মদ মোসাদ্দেক, অধ্যাপক আবু সালমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুল ইসলাম, প্রকৌশলী আবদুল হাফিজ খসরু, ডাঃ রিফাত হোসেন মালিক, মাওলানা আজীজুল হক, মাওলানা আবদুল হক আমিনী, খন্দকার সাহাব উদ্দিন আহমদ, তাওহিদুল ইসলাম তুহিন, মাওলানা সাইফ উদ্দিন আহমদ খন্দকার প্রমুখ।

বৈঠকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে খেলাফত মজলিসের পক্ষ থেকে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহন করা হয়। কর্মসূচীল মধ্যে রয়েছে ২৬ মার্চ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তলন। বছর ব্যাপি সারাদেশে শাখায় শাখায় র‌্যালী, আলোচনা সভা, সেমিনার, দোয়া অনুষ্ঠান, সম্ভাব্য শাখায় ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং, রক্ত দান কর্মসূচি, বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান। ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার প্রকাশ। বীর মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধাহত

মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময় ও সম্মাননা প্রদান ইত্যাদি।
বৈঠকে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মরহুম মাওলানা এ কে এম আইউব আলী ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহ-সাধারণ সম্পাদ কাজী আরিফুর রহমানের পিতা মরহুম কাজী ফজলুর রহমানের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়। দোয়া- মুনাজাত পরিচালনা করেন নায়েবে আমীর মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী।

G.M

About Gazi Mamun

Check Also

তারাবির নামাজ ‘মসজিদে পড়তে’ হবে এমন কথা নেই: ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ

রমজানে তা’রাবির ‘নামাজ আদায়’ নিয়ে গত বছরের মতো এ বছরও নতুন নি’র্দে’শ’না আসছে। ক’রো’না সং’ক্র’ম’ণে’র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *