আলেমদের গণহারে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানানোর ভাষা নেই: চরমোনাই পীর

দেশে মাদ্রাসা শিক্ষকসহ আলেমদের গণহারে গ্রে’প্তারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর ভাষা নেই বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলনের আমির ও চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম। রোববার (১৮ এপ্রিল)

এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক গ্রে’প্তারের পরই এই বিবৃতি আসে। সম্পর্কিত খবর গ্রে’প্তারের সময় হাতকড়া পরানো হয়নি মামুনুলকে গ্রে’প্তারের সময় শান্ত-স্বাভাবিক ছিলেন মামুনুল তেজগাঁও থানায়

মামুনুল হক বিবৃতিতে চরমোনাই পীর বলেন, দেশের নিরীহ নিরাপরাধ আলেমদের গ্রে’প্তার ও হয়রানির কারণে সরকারের চলমান লকডাউন কঠোরভাবে সমালোচিত হয়েছে। যখন মহামারি প্রকট আকার ধারণ
করছে, সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা দুর্বিষহ হয়ে উঠছে, তখন

আলেমদের অযথা হয়রানি-নির্যাতন কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। সরকারের আচরণ অমানবিক ও দুঃখজনক উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে মাদ্রাসা শিক্ষকসহ আলেমদের গণহারে গ্রে’প্তারের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর ভাষা নেই। পবিত্র রমজানের শুরুতেই দেশের আলেম ও মাদ্রাসা শিক্ষকদের সরকার

গণহারে গ্রে’প্তার করছে ও রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন চালাচ্ছে। যেকোনো ইসলামবিরোধী ইস্যুতে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে প্রতিবাদ করা দেশের আলেমদের নৈতিক দায়িত্ব বলে উল্লেখ করেন মুহাম্মদ রেজাউল করীম। তিনি বলেন, তাদের এই দায়িত্ব পালনে বাধা দান ও গ্রে’প্তার মেনে নেয়া যায় না। উল্লেখ্য, রোববার

মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে মামুনুল হক গ্রে’প্তার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগ। গ্রে’প্তারের পর মামুনুল হককে প্রথমে পুলিশের তেজগাঁও

বিভাগে নেয়া হয়। সেখানে কিছু সময় রাখার পর তেজগাঁও থানায় নেয়া হয়। তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) হারুন অর রশিদ বলেন, ২০২০ সালে মোহাম্মাদপুরে একটি ভাঙচুরের মামলায় মামুনুলকে গ্রে’প্তার দেখানো হয়েছে।

About Gazi Mamun

Check Also

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা সাইফুল্লাহ সাদীসহ দুইজন রিমান্ডে

কামরুজ্জামান মিন্টু, স্টাফ রিপোর্টার- হেফাজতে ইসলাম কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী (৬৪) ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *