উদ্ধার অভিযান শেষ, পরিচয় মিলেছে নিহত ২৫ জনের

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ, মুন্সিগঞ্জ- পদ্মায় স্পিডবোট দুর্ঘটনায় সোমবার (৩ মে) বিকেল চারটায় উদ্ধার অভিযান শেষ হয়েছে। সব মিলিয়ে মোট ২৬ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। এদের মধ্যে ২৫ জনের লাশ শনাক্ত হয়েছে।

বাকী একজনের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি নিহতদের মধ্যে খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলার বারুখালির মনির মিয়া (৩৮), হেনা বেগম (৩৬), সুমী আক্তার (৫) ও রুমি আক্তার (৩), ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার চরডাঙা গ্রামের আরজু

শেখ (৫০), ইয়ামিন সরদার (২), মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার সাগর ব্যাপারী (৪০), কুমিল্লা দাউদকান্দির কাউসার আহম্মেদ (৪০), রুহুল আমিন (৩৫), মাদারীপুর জেলার রাজৈরের তাহের মীর (৪২) ও কুমিল্লা তিতাসের জিয়াউর রহমানের (৩৫),

মাদারীপুরের শিবচরের হালান মোল্লা (৩৮), শাহাদাত হোসেন মোল্লা (২৯), বরিশাল তেদুরিয়ার আনোয়ার চৌকিদার (৫০), মাদারীপুর রায়েরকান্দি মাওলানা আব্দুল আহাদ (৩০), চাঁদপুর জেলার উত্তর মতলব মো. দেলোয়ার হোসেন (৪৫), নড়াইল লোহাগড়া রাজাপুর জুবায়ের মোল্লা (৩৫), মুন্সিগঞ্জ সদর সাগর

শেখ (৪১), বরিশাল মেহেন্দিগঞ্জ সায়দুল হোসেন (২৭), রিয়াজ হোসেন (৩৩), ঢাকা পিরেরবাগ খেরশেদ আলম (৪৫), ঝালকাঠি নালসিটি এসএম নাসির উদ্দীন (৪৫), বরিশাল মেহেন্দিগঞ্জের মো. সাইফুল ইসলাম (৩৫), পিরোজপুর চরখামা মো. বাপ্পি (২৮), পিরজপুর ভান্ডারিয়া জনি অধিকারী (২৬) মোট ২৫ জনের নাম পাওয়া গেছে। জানা গেছে, সোমবার ভোর ছয়টার সময় শিমুলিয়া থেকে কমপক্ষে ৩১ জন যাত্রী নিয়ে

শিবচরের বাংলাবাজার ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় একটি স্পিডবোট। কাঁঠালবাড়ী ঘাটের কাছে আসলে নোঙর করে রাখা একটি বাল্কহেডের সাথে ধাক্কা লাগলে ঘটনাস্থলেই ২৬ যাত্রীর মৃত্যু হয়। বেঁচে আহতাবস্থায় উদ্ধার করা হয় ৫ জনকে। দুর্ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে নিহতদের স্বজনেরা আসতে শুরু করে শিবচরের পদ্মার পাড়ে। তাদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে পদ্মার পাড় ও সংলগ্ন লাশ রাখার স্থান। নাজমুল নামের নিহতের এক ভাই

বলেন, ‘সকালে বাড়ির উদ্দেশ্যে ভাই ঢাকা থেকে রওনা হন। স্পিডবোটে উঠার আগে কথা হয়েছিল। পরে আর খোঁজ পাইনি। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে শিবচরের পদ্মার পাড়ে এসে ভাইকে শনাক্ত করি। আনোয়ার হোসেন নামে নিহত একজনের ছোট ভাই সোহাগ কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘ভাই বাড়ি আসবে আজ। রওনা দিয়েও ফোন দিয়েছিল। ভাই বাড়ি ফিরেছে। তবে লাশ হয়ে।’ শিবচর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নিহত ২৬ জনের মধ্যে ২৫ জনের লাশ সনাক্ত হয়েছে। ২৫ জনের লাশ পরিবারের কাছে

হস্তান্তর করা হয়েছে। বাকী ১ জনের লাশ এখনো সনাক্ত হয়নি।
বিকেল চারটার দিকে উদ্ধার অভিযান স্থগিত রাখা হয়েছে। কারণ ফায়ার সার্ভিস ভোর থেকে কাজ করছে। তারা দ্বিতীয় দফায় মঙ্গলবার আবারো অভিযানে নামবে। শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, ‘২৫ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলছে। ১ জনের পরিচয় সনাক্ত হয়নি।’

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, দুর্ঘটনা এলাকা পরিদর্শন করেছি। যারা দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন তাদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। মর্মান্তিক নৌ-দুর্ঘটনায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের প্রত্যেক পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে সহায়তা দেয়া হচ্ছে।’

About Gazi Mamun

Check Also

দৌলতপুরে অভিযানের ৮৫ কেজি ইলিশ দেওয়া হলো মাদ্রাসায়

দেওয়ান আবুল বাশার, স্টাফ রিপোর্টার: প্রধান প্রজনন ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *