থা’নায় সাব রেজিস্টার ডেকে আ’মিনুলের ২১ শ’তাংশ জমি খেয়ে ফে’লেন ডিসি হা’রুন

নারায়ণগঞ্জে যোগ দেয়ার আগে গাজীপুরের পুলিশ সুপার হি’সেবে দায়িত্ব পালন করেন হারুন অর রশীদ।টানা চার বছর এ জে’লা’য় দায়িত্ব পা’ল’নের সময় তার বিরুদ্ধে এন্তার অ’ভিযোগ ওঠে।ব্যবসায়ী,শিল্পপতিদের

জিম্মি করে টাকা আদা’য়,জমি দখলে সহায়তা ও মদত দেয়ার মতো গু’রুতর অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে।ক্ষ’ম’তার দাপটে কো’নঠাসা ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এমনকি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও।টাকার জন্য তার জিম্মি ফাঁদে পড়েন খোদ

ক্ষ’ম’তা’সী’ন দলের নেতাকর্মীরাও।গাজীপুর থেকে বদলি হও’য়া’র পর হারুনের নানা অপ’ক’র্মে’র বিষয় আলোচনায় আসে।তবে ভয়ে কেউ মুখ খুলেননি।নারায়ণঞ্জ থেকে প্র’ত্যা’হারের পর তার বিরুদ্ধে তদন্তের ঘো’ষ’ণা
দেয়ায় এখন গাজীপুরের ভু’ক্তভোগীরাও মুখ খুলতে শুরু

ক’রে’ছে:ন।যত অভিযোগ ২০১৮ সালে মাওনার নয়নপুর বা’জা’রে প্রায় ২১ শ’তাংশ জমির ওপর একটি মার্কেট দখলে এসপি হা’রুন সহ’যো’গিতা করেন।বিনিময়ে তিনি
নেন বড় অংকের টাকা।এমন অভিযোগ ক’রে’ছে’ন ওই মা’র্কে’টে’র মালিক আমিনুল হাজী।তিনি ব’লেন,আমরা তিন

ভা’ইয়ের নামে ওই মার্কেটটি ছিল।প্রায় পঞ্চাশ বছর আ’গে এক ব্য’ক্তি’র কাছ থেকে ৪৪ শ’তাং’শ জ’মি কিনেছিলেন আমাদের বাবা।পরে সর’কার এই জমির ২৩ শতাংশ নি’য়ে যায়।বাকি ২১ শ’তাংশ জ’মি’র ও’পরই মা’র্কে’ট’টি ছিল।কিন্তু গত বছরের ৪ঠা অক্টোবর জমির পূর্বের মা’লি’কের ছেলে আমির হোসেন এসপি হারুন ও ডিবির সহ’যোগিতা’য় মার্কেটটি দখলে

নিয়ে যায়।অথ’চ জমির সবকিছু ঠিক ছিল।একদিন গভীর রাতে শশ পুলিশ ও ডিবি সদ’স্য’দে’র উপ’স্থি’তি’তে বুল’ডোজার দিয়ে মার্কে’টটি ভেঙ্গে তারা দখলে নেয়।এর আগে জমি ছেড়ে
দেয়ার জন্য ডিবি আমাদের বাড়িতে গিয়ে খারাপ আচরণ ক’রে’ছি’লো।তারা আ’মা’দে’র অনেক ভয়ভীতি হুমকি দি’য়ে’ছি’লো।এরপর এসপি অ’ফিসে গিয়ে ডিবির ওসি আমির হো’সেনের কাছে আমরা ঘটনা বু’ঝিয়ে বলি।কিন্তু

তিনিও আমাদেরকে সহযোগিতা না করে উল্টো মার্কেটটি ছেড়ে দে’য়া’র কথা বলেন।২০১৭ সালের ৪ঠা ন’ভে’ম্বর দুপুর ১টা। গাজীপুর পৌর সুপার মার্কেটের দ্বিতীয় তলার মুক্ত সং”বাদ প’ত্রি’কা’র অফিস থেকে ডিবি পু’লিশের সদ’স্য’রা জো’র’পূ’র্ব’ক টেনে হিচড়ে তুলে নিয়ে যায় প’ত্রি’কাটির সম্পাদক প্রকাশক মো.সোহরাব হোসেনকে। তিনি ছোটবেলা থেকে শারীরিক প্রতিবন্ধি।যারা তুলে নিয়ে যা’চ্ছি’লো তাদের তিনি

জিজ্ঞাসা করেছিলেন কেন তাকে নেয়া হচ্ছে।ডিবির সদ’স্য’রা জবাব দেন এসপি হারুনের নির্দেশে তাকে নেয়া হচ্ছে।সো’হরাব বলেন,আমাকে প্রথমে নেয়া হয় গাজীপুর ডিবি অফিসে।সেখানে গিয়ে দেখি সাব রে’জি’ষ্টার মনিরুল ইসলাম বসে আ’ছে’ন।যার বিরুদ্ধে ঘটনার ক’য়েকদিন আগে বিভিন্ন দৃর্নীতির চিত্র তুলে ধরে আমার পত্রি’কা’য় তথ্যভিত্তিক রিপোর্ট করেছিলাম।আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ স’ম্প’র্কে জা’ন’তে চাইলে তৎকালীন ডিবির ই’ন্স’পেক্টর আমির হোসেন আমাকে ব’লেন,সাব

রেজিষ্ট্রি অ’ফিসে গিয়ে আমি চাঁদা চেয়েছি।কিন্তু কখনওই আমি সাব রে’জিষ্ট্রি অফিসে যাইনি।ওই অফিসের আটটি সিসি ক্যা’মে’রা’র ফুটেজ দেখলেই সেটি নিশ্চিত হওয়া যেত।কিন্তু তারা আমার কথা শুঃনে’ননি।বরং আ’মাঃকে বিভিন্ন এলাকা ঘুরিয়ে কো’র্টে নিয়ে গার’দখানায় আটকে রাখতে চে’য়ে’ছিলেন।পরে সেখানে দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রেখে চাঁদাবা’জির মামলা তৈরি করে আমাকে আদালতে তোলা হয়।ওই মা’ম’লায় আমি ১৭দিন জেলে ছিলাম।ওই’দিনই আবার জেলগেট থেকে তুলে নিয়ে এসপি

হারুনের কাছে আঃমা’কে মুচলেকা দিতে হয়েছে।চার বছর আগে একশ কোটি টাঃকা মু’ল্যে’র একটি জমি জোর করে রেজিষ্ট্রি করতে আ’র্থিঃক সুবিধা নিয়ে সহযোগিতা করেছেন এসপি
হারুন এমন অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা।এ অভিযোগে তার বিরুদ্ধে জেলা যুগ্ম জজ আ’দা’লতে’ মাম’লাও হয়ে’ছি’লো।২০১৬ সালের ১০ই মে ভুমি মন্ত্র’ণা’লয়ের একজন ক’র্মকর্তা ও স্থানীয় বাসিন্দা এই মামলা করেন।
পরে এসপি হারুন আদালতে মুচলেকা দিয়ে জামিন নেন।

About Gazi Mamun

Check Also

বাড়ি ফিরে পানি ছাড়া কিছুই খাননি আবু ত্ব-হা

আলোচিত ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান উদ্ধার হয়েছেন। উদ্ধারের পর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পক্ষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *