আসামিকে হাতকড়া না পরিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা দিল পুলিশ!

শনিবার (১৩ মার্চ) বিকেলে হঠাৎ কিশোরগঞ্জের মিঠামইন থানার ডিউটি অফিসারের রুমে হাজির হলে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি সোলাইমানের হাতে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। পুলিশ জানায়, মিঠামইনের শরীফপুর

গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে মো. সোলাইমান একটি সিআর মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি। দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন। গ্রেফতারের জন্য তাকে খুঁজছে পুলিশ। এরই মধ্যে কয়েকবার তাকে ধরতে বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

শনিবার বিকেলে থানায় হাজির হন সোলাইমান। এ সময় ডিউটি অফিসার তাকে জিজ্ঞেস করেন কেন এসেছেন? সোলাইমান বলেন আমার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট আছে। আমি ধরা দিতে এসেছি। আমাকে গ্রেফতার করেন। তার কথা শুনে ডিউটি অফিসার অবাক দৃষ্টিতে

তাকিয়ে রইলেন। ডিউটি অফিসার মো. মরিনুজ্জামান জানান,
ওয়ারেন্টভুক্ত একজন আসামিকে ধরতে কত কষ্ট করতে হয়। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অভিযান চালাতে হয়। গ্রেফতার এড়াতে নানা কৌশল অবলম্বন করে আসামি। অথচ আইনের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে থানায় এসে ধরা দিলেন সোলাইমান। এটি অবাক করা ঘটনা।

এরপর সোলাইমানকে ওসির কক্ষে নিয়ে গেলেন ডিউটি অফিসার।
ওসি বললেন এই সোলাইমান ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি সোলাইমান কিনা রেজিস্ট্রার খাতা দেখে নিশ্চিত হন। রেজিস্ট্রার খাতায় দেখা যায়, এই সেই সোলাইমান; যাকে খুঁজছে পুলিশ। ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি সোলাইমান বলেন, পলাতক জীবন খুবই কষ্টের। তাই

সিদ্ধান্ত নিলাম পুলিশের হাতে ধরা দেব। এজন্যই থানায় হাজির
হলাম। মিঠামইন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাকির রব্বানী বলেন, সোলাইমানের বিষয়টি অবাক করার মতো। যারা পলাতক আছেন; আইনের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে থানায় অথবা আদালতে হাজির হন। আপনার বিরুদ্ধে যে মামলাই থাকুক, সহযোগিতা পাবেন। বিচারকাজে সহযোগিতা করলে হয়তো আপনি মুক্তিও পেতে পারেন।

About Gazi Mamun

Check Also

বাড়ি ফিরে পানি ছাড়া কিছুই খাননি আবু ত্ব-হা

আলোচিত ধর্মীয় বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান উদ্ধার হয়েছেন। উদ্ধারের পর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পক্ষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *