ক্লাস করতে চাইলে ওড়না খুলে রাখতে হবে: আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক

আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) যারাই বড় ওড়না (ঐচ্ছিক পোষাক) পরে ক্লাসে গিয়েছিলেন তাদের সকলের ওড়না খুলে রেখে দেন ইংরেজি

বিষয়ের শিক্ষক রুবিনা সুলতানা। ওই শিক্ষার্থী বলেন, একজন নারী শিক্ষক হয়েও তিনি ছাত্রীদের বলেন, ওড়না যারা পরে থাকবে তাদের ক্লাস করতে দেওয়া হবে না। ক্লাস করতে চাইলে ওড়না খুলে রাখতে হবে। এরপর তিনি ছাত্রীদের ওড়না খুলে নিয়ে

টেবিলে রেখে দেন। একইসাথে যে তিনজন ছাত্রী বোরকা পরে এসেছিলেন তাদেরকে রুবিনা সুলতানা পরবর্তীতে বোরকা পড়ে না আসার জন্য নির্দেশ দেন। বোরকা পরে আসলে স্কুলে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না বলেও হুমকি দিয়েছেন তিনি। নাম প্রকাশ

না করার শর্তে ৮ম শ্রেণির আরেক ছাত্রী বলেন, ওড়না পরার ক্ষেত্রে শিক্ষকরা বলছেন, ‘ওড়না পরতে পারবে তবে তা গলা ও মাথার মধ্যে পেঁচিয়ে রাখতে হবে। কোনভাবেই বুক বা পিঠে রাখা যাবে না। যারা এমনভাবে ওড়না পরবে তাদেরকে ক্লাস থেকে বের

করে দেয়ারও হুমকী দেখা হচ্ছে বলে ওই ছাত্রী অভিযোগ করেন। আরেক শিক্ষার্থীর অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ঐতিহ্যবাহী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একধরণের পোষাক পরে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ করেই সেই পোষাক পরিবর্তন আনার কি প্রয়োজন হলো? পরিবর্তনের পর ওড়নাকে

ঐচ্ছিক করা হয়েছে। ঐচ্ছিক মানে কি? প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, যার ইচ্ছে হবে সে পরবে, ইচ্ছে হবে না পরবে না। কিন্তু এই ঐচ্ছিক পোষাকে বাধ্যবাধকতা কেন? ওড়নার কারণে ছাত্রীদের ওপর শিক্ষকরা মানসিক চাপ
দিচ্ছেন। এ বিষয়ে জানতে বনশ্রী শাখা আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড

কলেজের ইংরেজি শিক্ষক রুবিনা সুলতানা বলেন, ড্রেস কোডের মধ্যে ওড়না নেই। ঐচ্ছিকও করা হয়নি। চাইলে কেউ হিজাব করে মাথা ও গলা ঢাকতে পারবে। কিন্তু অবশ্যই কাধের নিচে স্কুলোর মনোগ্রাম দেখা যেতে হবে। ক্রস বল্টে দিয়ে অনেক ছাত্রীর বুক ঢাকতে সমস্যা হয় এজন্য বড় ওড়না ব্যবহার করতে পারবে কিনা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, আমাদের করার কিছু নেই।

চেয়ারম্যান যেভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন আমরা সেভাবেই করেছি। ছাত্রীদের ওড়না খুলে নিতে বাধ্য হয়েছি। আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল শাহান আরা বেগম বলেন, ওড়না নিষিদ্ধ করা হয়নি, ঐচ্ছিক করা হয়েছে। যারা পরতে চায় তারা মাথায় হিজাবের মতো করে পরতে পারবে। তবে কোনভাবেই যেনো দুই দিকে ঝুঁলে না থাকে।

About Gazi Mamun

Check Also

ভাগ্যের নির্মম পরিহাস: যে সাঁকো থেকে পড়ে মৃত্যু, সেই সাঁকোর ওপর দিয়ে বাড়ি ফিরল লাশ

সাঁকো থেকে পড়ে নিখোঁজ হয় শ্রবনী আক্তার। নয় বছর বয়সী শ্রাবনীকে খুঁজে হয়রান পরিবার। একে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *