১২টি আমে ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় বিক্রি হলো।

আর্থিক অনটনের কারণে বন্ধ হতে বসে তুলসির লেখাপড়া। তাই মাত্র ১২টি আম তার কাছ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় কেনে নেন ভারতের এক ব্যবসায়ী। আর এই টাকায় স্মার্ট ফোনে কেনে অনলাইনে ক্লাসে অংশ নিতে

পারবে জামেশদপুরের এ শিক্ষার্থী
করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় আম বিক্রি করে করেছিল ভারতের জামশেদপুরের ১১ বছর বয়সী তুলসি। পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তুলসির স্কুল বন্ধ থাকলেও অনলাইনে ঠিকই পাঠদান চলছে। কিন্তু স্মার্ট ফোনের অভাবে অনলাইন ক্লাসে অংশ নেওয়া সম্ভব হচ্ছিল

না। পরিবারের সামর্থ্য না থাকায় তাই বন্ধ হতে বসে তুলসির পড়ালেখা রাস্তা আম বিক্রি করতে থাকা তুলসির কাছে একদিন কিনতে আসেন ব্যবসায়ী আমেয়া হেত আম। তাকে জানায় এক লাখ ২০ হাজার টাকায় ১২টি আম কিনে নিচ্ছেন তিনি। এতে

অবাক হয় সে। পরে ব্যবসায়ী জানান, পড়ালেখার জন্য এই টাকা তাকে দেওয়া হচ্ছে। আগে থেকেই জানতে পারে তার আর্থিক সংকটের কারণে পড়া লেখা বন্ধ হতে বসেছিল। এই সুযোগেই সহায়তা করেন ব্যবসায়ী আমেয়া হেত। শুধু তাই নয়, এক বছরের জন্য ইন্টারনেট সেবাও নিশ্চিত করেন তিনি। পড়াশোনার খরচ ও

মোবাইল পেয়ে বেশ খুশি তুলসি। তার পরিবারও ওই ব্যবসায়ীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। ব্যবসায়ী আমেয়া বলছেন, পড়ার জন্য তুলসির উৎসাহ তাকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিল। তাই তুলসির

সহযোগিতায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। করোনা ভাইরাসের কারণে এক বছরের বেশি সময় ধরে ভারতের অধিকাংশ স্কুলের পড়াশোনা অনলাইনে চলছে।

About Gazi Mamun

Check Also

গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে হঠাৎ ৪ লাখ কোটি টাকা!

ধরুন, আপনার মোবাইলে হঠাৎ একটি মেসেজ আসলো, আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কয়েক হাজার কোটি টাকা নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *