বাবার লাশ পাহারা দেওয়া শিশু মরিয়মকে নওগাঁ জেলা পুলিশের সহায়তা

গত ৫ জুলাই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যান মজিবুর রহমান। এ সময় সাত বছর বয়সের মেয়ে শিশু মরিয়ম একা একা বসে

বাবার লাশ পাহারা দিচ্ছিল। এরকম একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর মেয়েটির পরিবারের খোঁজ মেলে। শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়া ব্যক্তির নাম মজিবুর রহমান।

তিনি পোরশা উপজেলার নিতপুর ইউনিয়ন এর চকবিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় একজন ফেরিওয়ালা। গ্রামে গ্রামে ঘুরে হাঁড়ি-পাতিল বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। সামাজিক

যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ার পর তাঁকে সহায়তার জন্য সরকারি বেসরকারিভাবে সহযোগিতার জন্য অনেকেই ছুটে আসেন। সেই ধারাবাহিকতায় নওগাঁ জেলা পুলিশ সুপার প্রকৌশলী

মো. আব্দুল মান্নানের নির্দেশনায় আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে শিশু মরিয়মের বাড়িতে আসেন পোরশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিউল আযম খান। এ সময় তাঁকে জেলা পুলিশের

পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জাহিদুল ইসলাম, পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মুনিরুল ইসলাম, শীতল কুমারসহ থানা পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

About Gazi Mamun

Check Also

বাবা নেই, প্রতিবন্ধী এতিম ছেলেটির জন্য একটি হুইল চেয়ারের আকুতি মায়ের

অনিল চন্দ্র রায়, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি- চয়ন আলী বয়স ১৪ বছর। জন্মের পর থেকেই দু’হাত, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *