করোনায় আরও ২২৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত বেড়ে দ্বিগুণ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ২২৮ জনের। এই নিয়ে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ২৭৪ জনে। এ সময় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ২৯১ জন। এতে মোট

শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১১ লাখ ৬১ হাজার ৬৩৫ জনে।গতকালের চেয়ে শনাক্ত বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। রোবাবর (২৫ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে শনিবার

মৃত্যু হয় ১৯৫ জনের।শনাক্ত হন ৬ হাজার ৭৮০ জন। এদিকে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮ হাজার ৪৩ জন। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪১ লাখ ৬৭ হাজার ৯২৬ জনে। একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন

করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৬৪৫ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় ৭২ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ কোটি ৪৩ লাখ ৭২ হাজার ৪০২ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ কোটি ৬৪ লাখ ৫০

হাজার ৪৯ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে রোববার (২৫ জুলাই) সকালে এই তথ্য জানা গেছে। ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫১

লাখ ৮৪ হাজার ৬৭১ জন আর মারা গেছেন ৬ লাখ ২৬ হাজার ৭১৩ জন। করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৪৮৬ জনে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ লাখ ২০ হাজার ৫২৫ জনের। লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর

সংখ্যায় তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ১ কোটি ৯৬ লাখ ৭০ হাজার ৫৩৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫০০ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ও সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ইন্দোনেশিয়ায়। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ৪১৫ জন এবং নতুন করে করোনাভাইরাসে

আক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ হাজার ৪১৬ জন। এছাড়া মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৩১ লাখ ২৭ হাজার ৮২৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৮২ হাজার ১৩ জনের। এছাড়া এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৫৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬৯৫ জন, রাশিয়ায় ৬১ লাখ ২ হাজার ৪৬৯ জন, যুক্তরাজ্যে ৫৬ লাখ ৬৯ হাজার ২৬০ জন, ইতালিতে ৪৩ লাখ ১২ হাজার ৬৭৩ জন, তুরস্কে ৫৫ লাখ ৮৭

হাজার ৩৭৮ জন, স্পেনে ৪২ লাখ ৮০ হাজার ৪২৯ জন, জার্মানিতে ৩৭ লাখ ৬১ হাজার ৮৫০ জন এবং মেক্সিকোতে ২৭ লাখ ২৬ হাজার ১৬০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ১১ হাজার ৬১৬ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৫৩ হাজার ৯৫ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ২৯ হাজার ১৩০ জন, ইতালিতে এক লাখ ২৭ হাজার ৯৪২ জন, তুরস্কে ৫০ হাজার ৮৭৯ জন, স্পেনে ৮১ হাজার ২২১ জন, জার্মানিতে ৯২ হাজার ৩৬ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ

৩৭ হাজার ৯৫৪ জন মারা গেছেন। প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)

About Gazi Mamun

Check Also

‘আমার বাচ্চা অসুস্থ, প্লিজ আমাকে যেতে দিন’- ওসমানী বিমানবন্দরে নারীর আকুতি

আমার বাচ্চা অসুস্থ, আমাকে প্লিজ যেতে দিন’ ‘কেউ আমাকে একটু সাহায্য করুন’- সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *