ছেলের জন্য আইসিইউ বেড ছেড়ে দেওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যেই মায়ের মৃত্যু

মা-ছেলে দুজনেই করোনায় আক্রান্ত। দুইজনের কারো অবস্থা ভাল নয়। শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। দুইজনেরই আইসিইউ প্রয়োজন। বৃদ্ধা মা চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে-ই ছিলেন।
এদিকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে

ছেলেরও আইসিইউ’র সেবা প্রয়োজন। কিন্তু হাসপাতালে আর আইসিইউ বেড খালি নেই। এমন পরিস্থিতিতেও বৃদ্ধা মা ছেলের জন্য আইসিইউ ছেড়ে দিলেন। আইসিইউ থেকে বের করার ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই শ্বাসকষ্টে মা মারা গেলেন। বর্তমানে ছেলেটি

মায়ের ছেড়ে দেওয়া সেই আইসিইউ বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ছেলের অবস্থাও সঙ্কটাপন্ন। মঙ্গলবার বিকেলে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। বুধবার রাতে হাসপাতালের আইসিইউ বেডের ইনচার্জ ডা. রাজদ্বীপ বিশ্বাস

গণমাধ্যমকে এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, সপ্তাহখানেক আগে নগরের দিদার মার্কেট সিঅ্যান্ডবি কলোনি এলাকার বাসিন্দা কানন প্রুভা পাল নামে ৬৭ বছর বয়সী এক নারী করোনা আক্রান্ত হয়ে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। কয়েকদিন পর তার ছেলে শিমুল

পালও করোনায় আক্রান্ত হয়ে একই হাসপাতালে ভর্তি হন। ডা. রাজদ্বীপ বিশ্বাস বলেন, হাসপাতালের আইসিইউ বেডে শুয়ে এমন খবর শুনে তার মা ইশারা করেন, তাকে বাদ দিয়ে যেন ছেলে শিমুলকে আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া হয়। শেষে পরিবারের সবার

সম্মতিতে চিকিৎসকরা মাকে বাদ দিয়ে ছেলে শিমুল পালকে আইসিইউ বেডে শিফট করান এবং মাকে আইসোলেশন বেডে নিয়ে যান। এ ঘটনার ঘণ্টাখানেক পরই বৃদ্ধা মা কানন প্রুভার মৃত্যু হয়। তিনি আরো বলেন, সবকিছু জেনে যেন কিছুই করার নেই।

মায়ের অবস্থাও খারাপ ছিল। তারপরও ছেলেকে যদি অন্য কোথাও আইসিইউ সাপোর্ট দেয়া যেত, তাহলে মাকে আইসোলেশন বেডে নেয়া লাগত না। বর্তমানে ছেলের অবস্থাও বেশি ভালো না।

About Gazi Mamun

Check Also

বাবার চেয়ে ছেলে ২ বছরের বড়, এলাকায় তোলপাড়!

ফরিদপুরে বাবার চেয়ে ছেলের বয়স দুই বছর বেশি এঘটনায় এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। বয়স্ক ভাতা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *