বড় ছেলেডার স্কুলে এসাইনমেন্ট করতে কাগজ কিনা লাগে- এই টাকাটাও দিতে পারতেছি না

বড় ছেলেডার স্কুলে এসাইনমেন্ট করতে কাগজ কিনা লাগে- এই টাকাটাও দিতে পারতেছি না ঠিকমতো।

গতকাল সারাদিন বৃষ্টি ছিল কিছু বিক্রি করতে পারি নাই। সন্ধ্যার সময় মাত্র ১১০ টাকা বিক্রি করতে পারছি, ১১০ টাকায় কি

খামু, ভাড়া দিমু, নাকি বউরের ঔষুধ কিনমু সেইদিন তিনজনের কাছে ধার করে বউয়ের ঔষুধ খরচ দিসি। রাস্তায় তো ঠিকঠাক

মানুষই নাই, কেমনে বিক্রি হইবো আমার জিনিস। সারাদিনে ১৫০ টাকার বেশি ইনকাম করতে পারি না। এই যে দুপুর খাবার খামু

যে এই টাকা টা নাই, তাই রুটি কলা খেয়ে দিন পার করতেছি।” লকডাউন হানিফ গাজী সাহেবেকে এক কঠিন বাস্তবতার সম্মুখীন

করেছে। জীবনে এত কষ্ট করতে হয়নি কোনসময়। আমরা চেষ্টা করেছি তার কষ্টের ভাগিদার হতে, কয়েকদিনের জন্য দুঃশ্চিন্তা মুক্ত যাতে থাকতে পারেন। তবে এরপরে কী হবে তার উত্তর কারো জানা নেই।

About Gazi Mamun

Check Also

ব্যবসায়ী মেহেদি হাসানের দেওয়া একটি কাঠের ব্রীজে বদলে গেল গ্রামটির চিত্র

একটি সেতুর অভাবে দীর্ঘদিন ধরে দুই পাড়ের জনপদের যোগাযোগ অনেকটা বিচ্ছিন্ন। আর বর্ষা মৌসুমে তো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *