হরিণ শি’কার করতে এসে বেকাদায় পড়ল চিতা, হরিণ চিতার লড়াইয়ে তুমুল ভাইরাল ভিডিও

নেটদুনিয়ায় বেশকিছু ভিডিও ভাইরাল হয় যেখানে আমরা দেখতে পাই অনেকের অবাক করা কিছু ঘটনা। এই সমস্ত ভিডিও বর্তমানে ইন্টারনেট দুনিয়ায় বেশ হৈচৈ সৃষ্টি করেছে। এই ভিডিও মানুষ বেশ পছন্দ করছেন বটে।

অনেকে আবার এই সমস্ত ভিডিও দেখে দিনের ক্লান্তি দূর করেন। দেশ-বিদেশে কি সমস্ত ঘটছে সেগুলো টুইটার এবং ইউটিউবসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে তুমুল ভাইরাল হয়। সকলেই এই সমস্ত ভিডিও দেখতে বেশ পছন্দ করেন। পাশাপাশি এই ভিডিওতে

ভিউ এর সংখ্যা অনেক বেশি থাকে। আজকের এই ভিডিওতে দেখানাে হয়েছে এই হিংস্র চি, তাও মাঝেমধ্যে নিরীহ প্রাণীর হাতেই বিপদে পড়ে যায়। ভিডিওটিতে একটি চিতা একটি হরিণের উপর আক্রমণ করে। অনেকক্ষন ছােটাছুটির পর অবশেষে

হরিণটিকে সে ধরতে সক্ষম হয়। এবং তার গলায় কামড়ে ধরে। প্রথমত হরিণটি যদিও প্রাণের ভয়ে পালাচ্ছিল কিন্তু পরে যখন চি, তার হাতে ধরা পড়ে যায় তখন সে উল্টো আক্রমণ করে বসে। অনেকক্ষণ দুজনের ধস্তাধস্তির পর একসময় হরিণ তার লম্বা সিং

দিয়ে চিতাটির পেটের মধ্যে বসিয়ে দেয়। এবং চিত টি কোন উপায় না পেয়ে প্রাণ বাঁচানাের জন্য হরিণটিকে ছেড়ে দেয়।হরিণটি ছাড়া পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে তার প্রাণ বাঁচিয়েছে। আমরা ইউটিউবে কিংবা ইন্টারনেটে বন্যপ্রাণীদের বিভিন্ন ভিডিও প্রায় সচরাচর পেয়ে

থাকে। যেগুলােতে দেখানাে হয় বিভিন্ন ধরনের হিংস্র প্রাণী যেমন বাঘ, চি, তা, সিংহ ইত্যাদি প্রাণীগুলাে বিভিন্ন প্রাণীদের ধরে ধরে খায়। কিন্তু এরকম নিরীহ প্রাণীর হাতেই বিপদে পড়ার মতাে কোন ভিডিও ইতিপূর্বে দেখিনি। এই ভিডিওটি ইউটিউবে ছাড়ার সাথে

সাথে তুমুল ভাবে ভাইরাল হয়। কেননা এই ভিডিওটিতে হরিণের সাহসিকতা দেখে প্রত্যেকেই অবাক হয়ে গিয়েছিল যে চি, তার মতাে একটি শক্তিশালী হিংস্র প্রাণী কে কিভাবে কৌশলের মাধ্যমে আঘাত করে পালিয়ে গিয়ে নিজের প্রাণ বাঁচিয়ে ছিল। এই

ভিডিওটি থেকে আমাদের অনেক কিছু শিখার আছে যে চেষ্টা করলে একসময় না একসময় অবশ্যই সফলতা পাওয়া যাবে।

ভিডিও দেখুন এখানে ক্লিক করুন

About Gazi Mamun

Check Also

রান্নার গ্যাসের দাম ক,মে গেল এক ধাক্কায়! মধ্যবিত্তদের মাঝে স্ব,স্থির নিঃশ্বাস

রান্নার গ্যাসের দাম কমে গেল এক ধাক্কায়! মধ্যবিত্তদের মাঝে স্বস্থির নিঃশ্বা’স- কমলো ভর্তুকিহীন এলপিজি গ্যাসের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *