কাতার থেকে নিথর দেহে কফিনবন্দী হয়ে দেশে ফিরলেন তোফায়েল

মাত্র কিছুদিন আগে কাতার এয়ারওয়েজে চড়ে ছুটি শেষে বাংলাদেশ থেকে কাতারে ফিরেছিলেন তোফায়েল আহমদ। যোগ দিয়েছিলেন কর্মস্থলে। মাত্র কয়েকদিনেই আবারও অ’সুস্থ হয়ে পড়েন এবং ভর্তি হন হামাদ

হাসপাতালে। এরপর সেখান থেকে আর ফেরা হলো না তাঁর। ছুটিতে বাংলাদেশে থাকাকালে যে ডে’ঙ্গুতে আ’ক্রা’ন্ত হয়েছিলেন, কাতারে আসার পর তাতেই মৃ’ত্যু হলো তোফায়েল আহমদের। ২০০৭ সালে তিনি কাতারে এসেছিলেন জীবিকার তাগিদে।

এরপর লা’শ হয়ে শেষবারের মতো কাতার ছেড়ে চলে গেলেন ৩১ আগস্ট বুধবার রাতে, নিথর দে’হে কফিনব’ন্দী হয়ে। গতকাল ৩১ আগস্ট বুধবার রাতে হামাদ হাসপাতালের ম’র্গে তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে তাঁর সহকর্মী ও বন্ধুরাসহ প্রায় ৩০ জন

উপস্থিত ছিলেন। জানাজায় ইমামতি করেন মাওলানা সুলতান। জানাজা শেষে তাঁর ক’ফিন তুলে দেওয়া হয় সরকারি অ্যাম্বুলেন্সে। সরাসরি তা রওয়ানা হয় বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে। কাতারের স্থানীয় সময় রাত ১ টায় রওয়ানা হয়ে কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইট

ঢাকায় পৌঁছেছে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টায়। মৃ’ত্যুকালে তোফায়েল আহমদ রেখে গেছেন স্ত্রী ও ভাই-বোনদের। নিঃসন্তান তোফায়েল ছোটবেলায় হা’রিয়ে’ছিলেন মা-বাবাকে। এরপর ক’ষ্টের জীবন শেষে তিনি এসেছিলেন কাতারে। কাজ করতেন

একটি পাঁচতারকা আবাসিক হোটেলে।ব্যক্তিজীবনে তিনি ছিলেন সদালাপী ও ভদ্র এবং উদার হৃদয়ের মানুষ। জানাজায় উপস্থিত তাঁর বন্ধু ও সহকর্মীদের অনেকের চোখে তাই ছিল স্বজন হা’রানোর অশ্রু।

About Gazi Mamun

Check Also

‘নিরাপত্তা নিশ্চিত করে’ মেয়েদের স্কুল খুলবে তালেবান

নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নত হলে মেয়েদের স্কুল খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তালেবান মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *