শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলতে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের জন্য যত নির্দেশনা

জাতীয় পরামর্শক কমিটির সুপারিশের আলোকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর’ বা এসওপি প্রস্তুত করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) অধিদপ্তর থেকে

এসওপিটি প্রকাশ করা হয়েছে। এতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, গভর্নিং বডি-ম্যানেজিং কমিটি ও মাঠ পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তাদের প্রতি একগুচ্ছ নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা অধিদপ্তর। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের

স্বাস্থ্যঝুঁকি কমাতে এসওপিতে দেওয়া দায়িত্বগুলো পালন করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।    এসওপিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের প্রতি নির্দেশনা: স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের জন্য ১৪ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে :

১. মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে জারীকৃত ‘গাইডলাইন’ এবং ৫ সেপ্টেম্বর দেওয়া নির্দেশনার কার্যক্রম সঠিকভাবে অনুসরণ নিশ্চিত করা। ২. কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে ‘করণীয়’ এবং ‘বর্জনীয়’ কাজ সম্পর্কে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও কর্মচারীদের নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সভা করে সকলকে এ বিষয়ে সুস্পষ্ট ধারণা দেওয়া।

৩. প্রতিটি শিক্ষার্থীর শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে আনন্দময় শিখন পরিবেশ নিশ্চিতকরণ। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অবস্থানকালে সব শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট সবার সর্বদা মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণ।

৫. কোন শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারীর কোভিড-১৯ এর লক্ষণ দেখা গেলে তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। ৬. স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে শিক্ষার্থীদের জন্য আসন বিন্যাস করা।

৭. শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কমপক্ষে ৮০ শতাংশ শিক্ষক কর্মচারীকে কোভিড-১৯ এর টিকা গ্রহণ নিশ্চিত করা। ৮. পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্রাতঃ সমাবেশ বন্ধ রাখা। ৯. কোয়ারেন্টিন বা আইসোলেশনে থাকা শিক্ষার্থীদের উপস্থিতগণ্য করে ১৪ দিন বাড়িতে থাকার অনুমতি দেওয়া। ১০. শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেওয়া।

১১. দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত নৃগোষ্ঠীর প্রতিবন্ধকতা বিবেচনা করে সব শিক্ষার্থীর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। ১২. মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশান উইং থেকে পাঠানো (অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে) নির্দিষ্ট ছকে গুগল ডক-এর মাধ্যমে তথ্য দৈনিক বিকাল ৩ টার মধ্যে পাঠানো নিশ্চিত করা।

১৩. প্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিন শিক্ষার্থীরা কিভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিষ্ঠানে অবস্থান করবে এবং বাসা থেকে যাওয়া-আসা করবে সেই বিষয়ে তাদেরকে শিক্ষণীয় ও উদ্বুদ্ধকারী ব্রিফিং দেওয়ার ব্যবস্থা করা। এছাড়া মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে দেওয়া ভিডিও প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা।

১৪. মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক জারীকৃত গাইডলাইন এবং নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণ করবেন। শিক্ষার সব খবর সবার আগে জানতে দৈনিক শিক্ষার ইউটিউব চ্যানেলের সাথেই থাকুন। ভিডিওগুলো মিস করতে না চাইলে এখনই দৈনিক শিক্ষাডটকমের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন এবং বেল বাটন ক্লিক করুন। বেল বাটন ক্লিক করার ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিডিওগুলোর নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে।

About Gazi Mamun

Check Also

মনে হচ্ছে হারিয়ে যাওয়া সন্তানকে ফিরে পেয়েছি

দীর্ঘ দেড় বছর পরে আজ (রোববার) থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *