Home / জাতীয় / পদ্মা ও মেঘনা নামেই নতুন বিভাগ করতে মত প্রধানমন্ত্রীর

পদ্মা ও মেঘনা নামেই নতুন বিভাগ করতে মত প্রধানমন্ত্রীর

আবারও কুমিল্লাকে ‘মেঘনা’ ও ফরিদপুরকে ‘পদ্মা’ নামে বিভাগ করার বিষয়ে মত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় একটি প্রকল্প অনুমোদনের সময়

এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। মঙ্গলবার (০৭ ডিসেম্বর) একনেকের বৈঠক শেষে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এ তথ্য জানান। একনেক সভায় মোট ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক

সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন। সভাশেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানান। পরিকল্পনামন্ত্রী

মান্নান বলেন, ‘একনেক সভায় ১০ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের জন্য একটি প্রকল্প অনুমোদন হয়। এ সময় কুমিল্লা ও ফরিদপুর বিভাগ নিয়ে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন কুমিল্লা ও তার

আশপাশের জেলা নিয়ে মেঘনা বিভাগ এবং ফরিদপুর ও তার আশপাশের জেলা নিয়ে পদ্মা নদীর নামে বিভাগ করা হবে। এর আগে গত অক্টোবরে আওয়ামী লীগের এক সম্মেলনে কুমিল্লাকে বিভাগ হিসেবে ঘোষণা করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবি

জানান কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। কিন্তু সেদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, কুমিল্লা বিভাগ নয়, তিনি নতুন বিভাগ করে নাম দেবেন মেঘনা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফরিদপুর বিভাগ হবে

পদ্মার নামে। আর কুমিল্লা বিভাগ হবে মেঘনা নামে। কুমিল্লা নাম দেয়া হবে না। কারণ, কুমিল্লার নামের সঙ্গে মোশতাকের নাম জড়িত।
তিনি বলেন, ‘‘‘কু’ নাম দেব না। কুমিল্লা নামের সঙ্গে মোশতাকের নাম জড়িত। কুমিল্লার নাম নিলেই

মোশতাকের নাম মনে পড়ে যায়। তাই কুমিল্লার নাম আসবে না। তা ছাড়া ফরিদপুরের নামেও বিভাগ দিচ্ছি না।’’
কু’ নাম দেব না। কুমিল্লা নামের সঙ্গে মোশতাকের নাম জড়িত।

About Gazi

Check Also

আমার জন্য অনেক বুলেট-বোমা-গ্রেনেড অপেক্ষায় থাকে: প্রধানমন্ত্রী

রাষ্ট্রনায়ক থেকে বিশ্বনেতা হয়ে ওঠার যে ম্যাজিক তিনি বিশ্বকে দেখিয়েছেন তা এখন উন্নত বিশ্বে ‘শেখ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *