Home / সারা বাংলাদেশ / ১০ বছর ধরে গর্ত বড় হয়েছে, সেতু নির্মাণ হয়নি

১০ বছর ধরে গর্ত বড় হয়েছে, সেতু নির্মাণ হয়নি

১০ বছর আ’গে সেতুটি ভাঙা শুরু হয়। দীর্ঘদিন ধরে ভা’ঙতে ভাঙতে চলা’চলের অযোগ্য হলেও বাঁশের মা’চা বসিয়ে ঝুঁ’কি নিয়ে চলছে নিরুপায় কয়ে’ক হাজার মানুষ। সেতু’তে তৈরি হওয়া বড় বড় গ’র্তের সৃষ্টি হয়ে

প্রা’য়ই ঘটছে মারা’ত্মক দু’র্ঘটনা। সংশ্লি’ষ্টদের কাছে বারবার জানানো হলেও নে’ওয়া হয়’নি কোনো উদ্যোগ। মাদারীপুর সদর উপজে’লা খোয়াজপুর ইউ’নিয়নের চরগোবিন্দপুর গ্রামের মৌ’লভীর খালের ওপর এটিএম বাজারের পাশে অ’বস্থিত সেই

সেতুটি। চলাচলের বিকল্প ব্যব’স্থা না থাকায় ঝুঁ’কিপূর্ণ সেতুটির ওপর বাঁ’শের মাচা বিছি’য়ে চলাচল করছে এলাকাবাসী। সরেজমি’নে দেখা যায়, এ সেতু নির্মাণের ফলে ইউনিয়নের ফরা’জীকান্দি, মাঝেরকান্দি, মাদবরকান্দি, ডিগ্রি খোয়াজপুর, ভসা’রচরসহ ৭ গ্রামের মা’নুষের যোগাযোগব্য’বস্থার উন্নয়ন হয়।

তবে পলেস্তারা খসে পড়’তে পড়তে সেতুর অন্তত ৫টি স্থানে বড় গর্তের সৃ’ষ্টি হয়ে বর্তমানে সেতুটি মা’নুষের চলাচলে’র অনুপযোগী হয়ে পড়ে’ছে। গ্রামের হাজারো মানুষের যাতায়া’তের একমাত্র ভর’সা সেতুটি। কিন্তু এর এমন বেহাল থাকায় প্রতিনিয়ত দুর্ভো’গে পড়তে হয় তাদের। খোঁজ নিয়ে জানা যায়,

প্রায় ৩০ বছর আ’গে খোয়াজপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চর গোবি’ন্দপুর গ্রামের চর গোবিন্দপুর ইউকে উচ্চবিদ্যালয়সংলগ্ন খালের ওপর ৫০ ফুট দৈ’র্ঘ্যের এ সেতুটি নির্মাণ ক’রা হয়। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্ত’রের অর্থায়নে নির্মিত সেতুতে প্রায় ১০ বছর আগে ফাটল দেখা দেয়। এরপ’র

থেকে ধীরে ধীরে পলে’স্তারাও খসে পড়তে শুরু করে। এটিএম বাজারের ব্যব’সায়ী ওবাইদুল বলেন, আমাদের গ্রামের স’ব ব্যবসায়ীর যাতায়াত এই সেতু দিয়ে। মাঝেমধ্যেই দু’র্ঘটনা ঘটে। ১০ বছর ধরে গর্ত বড় হয়েছে। কিন্তু সেতু নি’র্মাণ হয়নি। রাত হ’লে এটি হয় মরণফাঁদ। দ্রুত সেতু’টি নতুন করে পুন’র্নির্মাণ হ’লে

এলাকাবাসীর স্বস্তির নিশ্বাস ফেলবে। চরগোবিন্দপুর স্কুলের ছাত্রী সুরাই’য়া বলে, যখন সেতু পার হই, তখন ভয় লা’গে। আমরা দ্রুত একটি সে’তু চাই। সেতুটি নি’র্মাণ হলে আমরা স্কুলের ছাত্রছাত্রী নির্ভয়ে স্কু’লে আসা-যাওয়ার করতে পারব। খোয়াজপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের স’দস্য বাদল বেপা’রী বলেন,

প্রায় ৩০ বছর আগে সেতু’টি নির্মাণের পর এলাকাবা’সীর উপকার হয়েছিল। কিন্তু অন্তত এক দ’শক আগে এটি অকেজো হয়ে পড়ে। তারা ইউ’নিয়ন পরিষদ থেকে কয়েক’বার উ’দ্যোগ নি’লেও বরাদ্দ পাননি। মাদারীপুর সদর উপ’জেলা প্রকল্প

বাস্তবা’য়ন কর্ম’কর্তা মো. মশিউর রহ’মান বলেন, নতুন সেতু নির্মাণের জন্য ইতোমধ্যে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটি পাস হলে নতুন করে নি’র্মাণ করা হবে। আগামী জু’নে অর্থ বরাদ্দ পে’লে সেতুটি নতুন করে নির্মাণ করে দেব। সূএঃ ঢাকা পোস্টের সৌজন্যে

About Gazi

Check Also

চট্টগ্রামে সৈকতের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় বিচ ম্যানেজম্যান্ট কমিটি ঘোষণা

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সকালে বেসরকারি পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব মো. সফিউল আলম স্বাক্ষরিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *