Breaking News
Home / প্রবাসির কথা / ওমানে দুর্ঘটনা : আইসিইউতে ৬ মাস অজ্ঞান থাকা খিজমত আলী কোটিপতি

ওমানে দুর্ঘটনা : আইসিইউতে ৬ মাস অজ্ঞান থাকা খিজমত আলী কোটিপতি

ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গার কৃষক খিজমত আলী ২০১২ সালে ওমান যান। কাজ করতেন ফলের বাক্স তৈরির কারখানায়। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে কারখানার কাজে রাস্তায় নেমে বেপরোয়া প্রাইভেটকারের ধাক্কায় হারান বাম হাত

ও পায়ের কর্মক্ষমতা এবং বাকশক্তি। ছয় মাস অজ্ঞান অবস্থায় চিকিৎসাধীন ছিলেন আইসিইউতে। জ্ঞান ফিরলেও আজও তার স্মৃতি ফেরেনি।  বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিপূরণ পাওয়ার নজির বিরল হলেও ওমানের আদালতের রায়ে এক কোটি ১৪

লাখ ১০ হাজার ৯২২ টাকা পেয়ে খিজমত আলী আজ কোটিপতি। মঙ্গলবার প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমদ তার হাতে ক্ষতিপূরণের চেক তুলে দেন। ক্ষতিপূরণের চেক নিতে তার সঙ্গে আসেন তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম এবং ছেলে আমির হোসেন। লাঠিতে ভর করে অন্যের সহায়তায় ধীরে ধীরে হাঁটতে পারেন খিজমত আলী।

দুর্ঘটনার পরের সাত মাসের কোনো ঘটনাই তার মনে নেই। তার ছেলে আমির হোসেন জানালেন বিস্তারিত ঘটনা। আমির হোসেন জানান, এক ওমানীয় নারীর গাড়ির চাপায় তার বাবা আহত হন। যেদিন দুর্ঘটনা হয়েছিল, সেদিন খিজমত ফলের কার্টন নিয়ে কারখানা থেকে অন্যত্র নেমেছিলেন। পথের পাশে থেমেছিলেন চা

খেতে। সেখানেই গাড়িচাপা পড়েন। ফোন বন্ধ থাকায় এরপর অনেক দিন বাবার খরব পাননি তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনার মাসখানেক পর ওমান প্রবাসী এক বাংলাদেশির কাছে খবর পান তার বাবা অচেতন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরপর আরও পাঁচ মাস অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালে ছিলেন খিজমত।

তিনি যে প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন, তার এক প্রতিনিধি ২০১৮ সালের জুলাইয়ে তাকে বাংলাদেশের বিমানবন্দরে রেখে চলে যায়। এরপর খিজমতের পরিবার ক্ষতিপূরণের জন্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডে যোগাযোগ করে। ওমানস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম উইং খিজমত আলীর হয়ে ক্ষতিপূরণ

দাবি করে মামলা করে। উকিলের সম্মানীসহ মামলার পুরো খরচ বহন করেছে কল্যাণ বোর্ড। খিজমত আলীর পরিবারকে একটি টাকাও দিতে হয়নি। আমির হোসেন জানালেন, মামলার পেছনে খরচ না হলেও গত সাড়ে তিন বছরে বাবার চিকিৎসায় বিস্তর খরচ হয়েছে। চাষের জমি বন্ধক দিয়ে চিকিৎসা করাচ্ছেন।

কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ পাওয়ায় এখন উন্নত চিকিৎসা করাতে পারবেন। ডাক্তাররাও আশা দিয়েছেন নিয়মিত ফিজিও থেরাপি দিলে একদিন না একদিন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠবেন তিনি। তার আগে দু’টি অস্ত্রোপচার করে কর্মক্ষমতা হারানো হাত ও পায়ে লাগানো রড খুলতে হবে।

ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক হামিদুর রহমান বলেন, শ্রম উইং শুরু থেকেই মামলার পেছনে লেগে ছিল। ন্যায় বিচার পেয়েছেন খিজমত আলী। ক্ষতিপূরণের টাকা পাওয়া গেছে বিমা এবং খিজতম আলী যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন তাদের কাছ থেকে। এই ব্যাপারে মন্ত্রী ইমরান আহমদ বললেন, সরকার যে প্রবাসীদের পাশে রয়েছে, কর্মক্ষেত্রে হতাহত প্রবাসী

বাংলাদেশিদের জন্য খিজমত আলীর ক্ষতিপূরণ প্রাপ্তি নজির হয়ে থাকবে। দূতাবাসের তৎপরতায় আদালতের মাধ্যমে বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়েছে। অনেক স্মৃতি হারালেও এককালের কৃষক খিজমত আলীর মনে আছে প্রাণপ্রিয় চাষের জমি বন্ধক দেওয়া রয়েছে। সেগুলো ছাড়াবেন ক্ষতিপূরণের টাকায়। বাকশক্তি কিছুটা ফিরেছে। এখন ভেঙে ভেঙে একটি দু’টি শব্দ বলতে পারেন। কিছু জিজ্ঞাসা করলে সাড়া দেন। খিজমত আলীর স্ত্রী আনোয়ারা অত টাকা পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় কিছুই বলতে পারলেন না- কেঁদে ভাসালেন।

বললেন, এক ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে তার খুব কষ্টের সংসার। স্বামীর রোজগার বন্ধ হওয়ায় গত চার বছর ধার দেনা করে চলছেন। এর মধ্যেই মেয়েটার বিয়ে দিয়েছেন। ক্ষতিপূরণে টাকায় ধারদেনা শোধ করবেন। স্বামীর চিকিৎসা করাবেন। ছেলেকে নিয়ে এবার একটু মাথা উঁচু করে চলবেন। বাবার অসুস্থতার পর চাষবাসের হাল ধরা ছেলের জন্য একটা বউ আনবেন। আর কী চাই এক জীবনে।

About Gazi

Check Also

কাতারে সড়ক দু’র্ঘ’টনা’য় প্রবাসী তরুণের মৃ’ত্যু

কাতারে সড়ক দু;র্ঘ;টনা;য় নাসির উদ্দিন নামে এক প্রবাসী তরুণের ম;র্মা;ন্তিক মৃ;ত্যু হয়েছে। তাঁর বয়স হয়েছিল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *