Home / খেলা-ধুলা / এবার ব্যাংকের মালিক হচ্ছেন সাকিব আল হাসান

এবার ব্যাংকের মালিক হচ্ছেন সাকিব আল হাসান

ক্রিকেটের পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ব্যবসা-বাণিজ্যের সঙ্গে যুক্ত আছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। রেস্টুরেন্ট থেকে শুরু করে ব্রোকারেজ হাউজ ও স্বর্ণ আমদানি প্রতিষ্ঠানসহ কয়েকটি ব্যবসায় নাম লিখিয়েছিলেন তিনি।

এবার করপোরেট জগতে সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান ব্যাংক খাতেও যুক্ত হচ্ছেন ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। আজ বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) এ তথ্যটি প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম দৈনিক বণিক বার্তা। প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী, বাংলাদেশ ব্যাংকের

লাইসেন্স প্রাপ্তির অপেক্ষায় থাকা পিপলস ব্যাংকের দুটি পরিচালক পদের মালিকানা যাচ্ছে সাকিবের হাতে। এখানে সাকিব একই নন, তার মা শিরিন আক্তারও হচ্ছেন ব্যাংকটির পরিচালক। এ-সংক্রান্ত নথিপত্র বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পাঠিয়েছে পিপলস ব্যাংক

কর্তৃপক্ষ। পিপলস ব্যাংকের প্রধান উদ্যোক্তা এমএ কাশেম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পিপলস ব্যাংকের মালিকানায় সাকিব আল হাসান ও তার মা যুক্ত হচ্ছেন। এরই মধ্যে আমরা তাদের ফাইল বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দিয়েছি। সাকিবের মতো একজন

তারকাকে উদ্যোক্তা হিসেবে পাওয়া আমাদের জন্য গৌরবের। এখনই আমরা এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলতে চাই না। পিপলস ব্যাংকের লাইসেন্সের জন্য প্রয়োজনীয় মূলধন আমরা সংগ্রহ করতে পেরেছি। আশা করছি, ডিসেম্বরের মধ্যেই বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছ

থেকে আমরা চূড়ান্ত লাইসেন্স পাব। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দেশের সব ব্যাংকের মূলধন ৫০০ কোটি টাকায় উন্নীত করতে নির্দেশনা রয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের। সে হিসেবে নতুন ব্যাংকের লাইসেন্স পেতে হলে সমপরিমাণ অর্থ মূলধন হিসেবে জমা রাখতে হবে। উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য হতে হলে

প্রয়োজন হয় সর্বনিম্ন ২ শতাংশ শেয়ার ধারণের। সে হিসেবে পিপলস ব্যাংকের পরিচালক পদের জন্য সর্বনিম্ন ১০ কোটি টাকা মূলধন জোগান দিতে হবে সাকিব আল হাসানকে। তবে ব্যাংকটির মালিকানায় আসতে তিনি ২৫ কোটি টাকারও বেশি মূলধন জোগান দিচ্ছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। প্রস্তাবিত পিপলস ব্যাংকের

লাইসেন্সের জন্য আবেদনকারী এমএ কাশেম যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা। চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের এ বাসিন্দা ব্যাংকের লাইসেন্স চেয়ে আবেদনের পর থেকেই বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। পিপলস ব্যাংকের উদ্যোক্তা হওয়ার জন্য দেশের বিভিন্ন শিল্প গ্রুপ ও ধনাঢ্য ব্যক্তির কাছে তিনি প্রস্তাব নিয়ে গিয়েছিলেন।

শুরুতে ব্যাংকটির উদ্যোক্তা হতে অনেকেই আগ্রহী ছিলেন। কিন্তু স্বার্থসংশ্লিষ্ট নানা জটিলতায় শেষ পর্যন্ত তাদের বেশির ভাগই ছিটকে পড়েছেন। শেষ পর্যন্ত সাকিব আল হাসান ও তার মা শিরিন আক্তার এবং রাজনৈতিকভাবে প্রভাবশালী কয়েকটি পরিবারের সদস্যরা পিপলস ব্যাংকের উদ্যোক্তা হিসেবে যুক্ত হয়েছেন। চূড়ান্ত লাইসেন্স পেলে এটি শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

About Gazi

Check Also

মুসলিম উসমান খাজার প্রতি সম্মান, ‘মদ-উদযাপন’ বন্ধ রাখল অস্ট্রেলিয়া

হোবার্টে শেষ টেস্টে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ৪-০ ব্যবধানে অ্যাশেজ সিরিজে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। সিরিজের চতুর্থ টেস্ট …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *