Home / আলোচিত বাংলাদেশ / পর্যাপ্ত মজুদ থাকা সত্বেও চালের বাজারে আগুন, দেখার কেউ নাই

পর্যাপ্ত মজুদ থাকা সত্বেও চালের বাজারে আগুন, দেখার কেউ নাই

হঠাৎ করে বস্তাপ্রতি চালের দাম ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা বৃদ্ধিতে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে ক্ষেতমজুর ইউনিয়ন। আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে

সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাজারে গেলে মনে হয় না দেশে কোনো সরকার আছে। কারণ কৃত্রিম সংকট তৈরি করে সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীরা অস্বাভাবিকভাবে চালের এই মূল্যবৃদ্ধি ঘটিয়ে

চলেছেন। অথচ দেখার কেউ নেই।
সংগঠনের সভাপতি সাইফুল হক ও সাধারণ সম্পাদক আকবর খান স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাজারে চালের সরবরাহে

কোনো ঘাটতি নেই। যতটুকু ঘাটতি ছিল তা বেসরকারি পর্যায়ে আমদানি করে মেটানো হয়েছে। তাই ভরা মৌসুমে ও পর্যাপ্ত মজুদ থাকা অবস্থায় চালের মূল্যবৃদ্ধির যৌক্তিক কারণ নেই।

মুনাফালোভী সিন্ডিকেট চক্র যা খুশি তাই করে চলেছে। বাজারে কোনো ধরনের মনিটরিং না থাকায় আমদানিকারক ব্যবসায়ী, মিলারসহ মধ্যস্বত্বভোগী ব্যবসায়ীরা রীতিমতো বেপরোয়া।

মানুষকে এঁরা জিম্মি করে ফেলেছেন। বিবৃতিতে তাঁরা উল্লেখ করেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির অজুহাতে ব্যবসায়ীরা কয়েক দফা চালসহ খাদ্যদ্রব্যের দাম বাড়িয়েছেন। এখন আবার আমদানি

বন্ধের অজুহাত দিয়ে খাদ্যশস্যের মূল্য বৃদ্ধি করে চলেছেন। আকস্মিক এই মূল্যবৃদ্ধি শ্রমজীবী-মেহনতি সাধারণ মানুষের জীবনে নতুন বিপর্যয় নিয়ে এসেছে। দেশের পাঁচ কোটি মানুষ এখন চরম

অসহায় জীবন যাপন করছে। নেতৃবৃন্দ অনতিবিলম্বে মুনাফাখোর বাজার সিন্ডিকেটসমূহের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, কার্যকরভাবে বাজার নিয়ন্ত্রণ,

চালসহ খাদ্যদ্রব্যের দাম কমিয়ে আনার দাবি জানিয়েছেন।
একই সাথে স্বল্প আয়ের মানুষের জন্য রেশনিং ব্যবস্থা চালুরও দাবি জানান তাঁরা

About Gazi

Check Also

“ট্রেনে কক্সবাজার ভ্রমণ, নির্মাণ’ করা হচ্ছে’ ৮টি স্টেশন! যাওয়া যাবে মাএ কয়এক ঘন্টার ভিতরে

সরকারের মেগা প্রকল্পগুলোর মধ্যে স’ব’চে’য়ে গুরুত্বপূর্ণ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন নির্মাণ প্রকল্প। কর্ণফুলী টানেল, পদ্মা সেতু মে’রি’ন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.