Home / আন্তর্জাতিক / চীন উদ্ধার করল ছয় কোটি বছর আগের ডাইনোসরের ভ্রূণ

চীন উদ্ধার করল ছয় কোটি বছর আগের ডাইনোসরের ভ্রূণ

ডাইনোসরের নিখুঁতভাবে সুরক্ষিত একটি ভ্রূণ খুঁজে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। ঠিক মুরগির বাচ্চার মতো ডিম ফুটে জন্ম নেয়ার পর্যায়ে ছিল ওই ভ্রূণটি। দক্ষিণ চীনের গানঝউ শহরে ভ্রূণটির জীবাশ্ম খুঁজে

পেয়েছেন তারা এবং তাদের হিসেবে এটি অন্তত ছয় কোটি ৬০ লক্ষ বছরের পুরোনো। সিএনএন’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে এটি দাঁতবিহীন থেরোপোড বা ওভিরাপ্টোরোসোর প্রজাতির ডাইনোসর। বিজ্ঞানীরা এর নাম

দিয়েছেন বেবি ইংলিয়াং। গবেষক ড. ফিওন ওয়াইসুম মা বলেছেন, এটি ইতিহাসে সবচেয়ে উৎকৃষ্ট অবস্থায় সুরক্ষিত ডাইনোসর ভ্রূণের জীবাশ্ম খুঁজে পাওয়ার ঘটনা। এই আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের হাতে নতুন তথ্য এনে দিয়েছে, যা দিয়ে তারা

ডাইনোসরের সাথে আধুনিক প্রজাতির পাখির কতটা মিল রয়েছে, তা প্রতিষ্ঠা করতে পারবেন। এই জীবাশ্ম থেকে দেখা যাচ্ছে, ডাইনোসরের ভ্রূণটি ডিমের ভেতর গুটিয়ে থাকা অবস্থায় ছিল, যাকে বৈজ্ঞানিক পরিভাষায় বলা হয় ‘টাকিং’, পাখিদের ডিম

ফুটে বাচ্চা বের হবার কিছুক্ষণ আগে ভ্রূণ ঠিক এই অবস্থায় থাকে। ড. মা বলেন, এ থেকে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে আধুনিক পাখি প্রজাতির পূর্বপুরুষ ছিল ডাইনোসর এবং ডাইনোসরের মধ্যে বিবর্তনের মধ্যে দিয়েই প্রথম জন্ম নেয় আজকের পাখি প্রজাতি।

ওভিরাপ্টোরোসোরস-এর অর্থ হল ‘ডিম চুরি করা সরীসৃপ’। এই প্রজাতির ডাইনোসরের গা ছিল পালকে ঢাকা এবং এদের বাসভূমি ছিল ৬ কোটি ৬০ লাখ থেকে ১০ কোটি বছর আগে, আজকের এশিয়া ও উত্তর আমেরিকা অঞ্চলে। গবেষকরা বলছেন,

ডাইনোসরের ডিমের ভেতর ভ্রূণটি এই অবস্থায় সম্ভবত সুরক্ষিত হয়ে যায় আকস্মিক এক ভূমিধসের কারণে। ধসের নিচে চাপা পড়ার কারণে অন্যান্য প্রাণী ভ্রূণটিকে খেয়ে ফেলতে পারেনি।

About Gazi

Check Also

দুই মেয়েকে বিক্রির পর নিজের কিডনিও বেচে দিলেন মা

মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। নেই কোনো কাজ। তাতে দশ জনের পরিবারের খাবার মিলছে না। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.