Home / কৃষি নিউজ / সবচেয়ে দামি মশলা কালো এলাচ চাষে স্বপ্ন দেখছেন মাহফিজুর

সবচেয়ে দামি মশলা কালো এলাচ চাষে স্বপ্ন দেখছেন মাহফিজুর

সবচেয়ে দামি মশলা কালো এলাচ চাষে স্বপ্ন দেখছেন নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলার খঞ্জনপুর এলাকার কৃষি উদ্যোক্তা মাহফিজুর রহমান। নিজের ৫ শতাংশ জমিতে পরীক্ষামূলকভাবে ২০টি ইন্দোনেশিয়ান কালো

এলাচের গাছ রোপণ করেছেন তিনি।
ইতোমধ্যে গাছগুলো ডালপালা ছড়িয়ে বিশালাকার ধারণ করেছে। বাণিজ্যিকভাবে বিপনন সুবিধা থাকলে প্রতি মৌসুমে শতক প্রতি প্রায় ৩ থেকে সাড়ে তিন লক্ষ টাকার কালো এলাচ বিক্রয় করা

সম্ভব বলে জানিয়েছেন তিনি। মাহফিজুর রহমান জানান, এলাচের গাছ রোদ সহ্য করতে না পারায় ছায়াযুক্ত জায়গায় বা কোন গাছের নিচে রোপণ করতে হয়। এজন্য তিনি তার আম বাগানের মধ্যে ৫ শতাংশ জমি বেছে নিয়ে সেখানে এলাচের গাছ রোপণ

করেছেন। একটি এলাচ গাছ থেকে আরেক গাছের দূরত্ব দেওয়া হয়েছে ২২ ফুট। রোপণকৃত গাছ হতে পরিপক্ক ফল পেতে প্রায় ২ বছর সময় লেগে যায় ফলে গাছ রোপণের পর দীর্ঘ সময় পরিচর্যা করতে হয়। তিনি আরও জানান, গাছ রোপণের পরে

তেমন কোন পরিচর্যা করতে হয় না। তবে নিয়মিত সেঁচ দেওয়া, জৈব-রাসায়নিক সার ও সামান্য পরিমাণে বালাইনাশক প্রয়োগ করতে হয়। মাটির গুণগত মান ভালো হবার ফলে এলাচ চাষে অনেকটা অনুকূল। বাণিজ্যিকভাবে বিপনন সুবিধা থাকলে প্রতি

মৌসুমে শতক প্রতি প্রায় ৩ থেকে সাড়ে তিন লক্ষ টাকার কালো এলাচ বিক্রয় করা সম্ভব। উপজেলা সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আতাউর রহমান সেলিম বলেন, ইন্দোনেশিয়ান কালো এলাচ দীর্ঘ সময় পরে ফল আসে। যার কারণে কালো

এলাচ চাষ তেমন ফলপ্রসূ নয়। তবে যদি কেউ এলাচ চাষ করতে চায় তাহলে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে সকল ধরনের সহায়তা প্রদান করা হবে।

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

About Gazi

Check Also

প্রতি বছর জাহিদ মাছ বিক্রি করেন ৩ কোটি টাকার

বিদেশ যাওয়ার হাতছানি তাকে আকৃষ্ট করতে পারেনি, ছোটেননি চাকরির পেছনে। তিনি মেহেরপুর সদর উপজেলার সুবিদপুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *