Home / দুঃখজনক / গাছের ডাল কেটে সংসার চালান প্রতিবন্ধী একরামুল

গাছের ডাল কেটে সংসার চালান প্রতিবন্ধী একরামুল

ভিক্ষাবৃত্তি ইসলামে জায়েজ নেই। হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, আল্লাহতায়ালার কাছে হালাল কাজগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নিকৃষ্ট বা রাগের উদ্রেক সৃষ্টিকারী কাজ হলো স্ত্রীকে তালাক দেয়া ও ভিক্ষা করা।

অন্য আর দশটা স্বাভাবিক শিশুর মতোই জন্ম নিয়েছিলেন রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের মদামুদন দক্ষিণপাড়ার দিনমজুর আব্দুল করিমের ছেলে একরামুল হক (৩২)। তবে কখনও সৌভাগ্য হয়ে ওঠেনি দুই পায়ে ভর করে

হাঁটা-চলা করার কিংবা দৌড়ানোর। পোলিও আক্রান্ত হয়ে হারিয়ে ফেলেন একটি পায়ের কর্মক্ষমতা। এজন্য কখনও হামাগুড়ি আবার স্ক্র্যাচে ভর করে চলতে হয় তাকে। শারীরিক প্রতিবন্ধকতার পরও থেমে নেই একরামুল হকের জীবন। এক পা নিয়েই জীবনযুদ্ধে লড়ে যাচ্ছেন তিনি। ভিক্ষাবৃত্তিতে না জড়িয়ে একরামুল গাছের

ডালে খুঁজে ফেরেন অনাগত দিনের চাওয়া-পাওয়া। দিনমজুুর আব্দুল করিমের তিন নম্বর সন্তান একরামুল হক। ঘরে মা-বাবা, সন্তানসম্ভবা স্ত্রী ও স্বামী পরিত্যক্তা বোন রয়েছে। গাছের ডাল কেটে তার সংসার চলে। এজন্য গ্রামে ‘গাছকাটা একরামুল’ নামেই বেশ পরিচিত তিনি। ডাক এলেই ছুটে যান এ গ্রাম ও

গ্রামে। একরামুলের বড় দুই ভাইয়ের মধ্যে একজন দিনমজুরি করেন। বিয়ে করে তিনি আলাদা হয়েছেন। মেজ ভাই রাজমিস্ত্রির কাজ করতে গিয়ে পরিবার নিয়ে থাকেন শহরে। একমাত্র ছোট বোনের বিয়ে হলেও সংসার টেকেনি বেশিদিন। স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে এখন বাবার বাড়িতেই অবস্থান করছেন তিনি।

মাত্র চার শতক জমির ওপর একরামুলের বসতভিটা। কোনো সহায়-সম্পদ নেই। হামাগুড়ি দিয়ে একরামুলের স্কুলে যাওয়া শুরু হলেও অভাবের তাড়নায় মুছে যায় সে স্বপ্ন। স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ালেখা করে পাঠ চুকে ফেলেন। এরপর শুরু হয় বেঁচে থাকার লড়াই। প্রতিবন্ধী হয়েও

ভিক্ষাবৃত্তিতে না জড়িয়ে গাছের ডাল কাটাকে পেশা হিসেবে বেছে নেন তিনি। ডাল কাটাকে কেন পেশা হিসেবে বেছে নিলেন, এমন প্রশ্নের জবাবে একরামুল হক বলেন, ‘ইচ্ছা ছিল পড়ালেখা শিখে ভালো কিছু করবো। কিন্তু অভাবের তাড়নায় সেটা যখন সম্ভব হয়ে উঠলো না, তখন কিছু একটা করার জন্য চেষ্টা করতে থাকি।

এক পায়ে ভর দিয়ে গাছে উঠতে শুরু করি। প্রতিবেশীরা বিভিন্ন গাছের ডাল কাটতে ডাকলে ছুটে যেতাম। এর বিনিময়ে ৫-১০ টাকা করে পেতাম। এভাবে ধীরে ধীরে গাছে ওঠা এবং ডাল কেটে আয় বাড়তে থাকে। এখন এটাই আমার পেশা।

About Gazi

Check Also

স্ত্রী ছেড়েছেন, ২০ বছর প’ঙ্গু ছেলেকে আগলে রেখেছেন বৃ’দ্ধা ‘মা’

একটি দু’র্ঘ’টনা ওল’টপালট করে দিয়েছে জিনারুল বিশ্বাসের জীবন। অ’সুস্থ স্বামীকে রেখে স্ত্রী চলে গেলেও ২০ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *